Subscribe our WhatsApp Channel Vision Institute Visit!

Search Suggest

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর | প্রবন্ধ রচনা

ভূমিকাঃ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বিশ্বকবি হিসেবে পরিচিত । তার রচিত সাহিত্য সারা বিশ্বের এক অমূল্য সম্পদ । বিশ্বকবি ছিলেন সর্বব্যাপী প্রতিভার অধিকারী ।
(প্রবন্ধ রচনা)

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

ভূমিকাঃ 

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বিশ্বকবি হিসেবে পরিচিত । তার রচিত সাহিত্য সারা বিশ্বের এক অমূল্য সম্পদ । বিশ্বকবি ছিলেন সর্বব্যাপী প্রতিভার অধিকারী । 

জন্ম ও বংশ পরিচয়ঃ 

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ৭ই মে ১৮৬১ সালে কলকাতার জোড়া সাঁকো ঠাকুর পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেছিলেন  । তার পিতার নাম মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর মাতার নাম শারদা দেবী । মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথ নিজেও একজন ভালো লেখক ছিলেন । শৈশবে দাদা জ্যোতিরিন্দ্রনাথের কাছ থেকে রবীন্দ্রনাথ রচনা লেখার উৎসাহ  পেয়েছিলেন । 

ছাত্র জীবনঃ 

বাল্যকালে রবীন্দ্রনাথ ওরিয়েন্টাল সেমিনারি অনৰ্মাল স্কুলে কিছু দিন লেখাপড়া করেছিলেন । স্কুলের পরিবেশ তার ভালো না লাগায় তিনি স্কুল ছেড়ে বাড়িতেই মনদিয়ে  লেখাপড়া করতে থাকেন । উচ্চশিক্ষার জন্য তাকে বিদেশে পাঠানো হয়, কিন্তু সেখান থেকেও তিনি ফিরে আসেন এবং দেশে ফিরে কবিতা, গল্প, গান, নাটক, ইত্যাদি লেখা শুরু করেন । 

সাহিত্যচর্চা এবং কর্মজীবনঃ 

রবীন্দ্রনাথ অজস্র গান, কবিতা, নাটক, উপন্যাস ও গল্প লিখেছেন । ১৯১৩ খ্রিস্টাব্দে ‘গীতাঞ্জলি’ কাব্যগ্রন্থের জন্য তিনি নোবেল পুরস্কারে পুরস্কৃত হন । বিশ্বের বিভিন্ন দেশে তিনি আমন্ত্রিত হয়েছিলেন । আমাদের দেশের জাতীয় সংগীত ‘জন গণ মন’ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের রচনা এছাড়াও বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত ‘আমার সোনার বাংলা’ এই দুটি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর লিখেছেন । তিনি শান্তিনিকেতনে বিশ্বভারতী বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেছিলেন এবং শ্রীনিকেতনে  স্থাপন করেছিলেন পল্লী উন্নয়ন কেন্দ্র । 

উপসংহারঃ

১৯৪১ খ্রিস্টাব্দের ৭ ই আগস্ট তারিখে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের মৃত্যু হয় । প্রতিবছর ২৫এ বৈশাখ, আমরা কবিগুরু রবীন্দ্রনাথের জন্মদিন পালন করি । তার লেখা গান, কবিতা, নাটক এই সবের মাধ্যমে আমরা তাকে শ্রদ্ধা নিবেদন করি । 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন